Wednesday, June 23, 2021

‘শীত-গ্রীষ্ম-বর্ষা, রাজীবদা ভরসা,’ ফের বনমন্ত্রীর সমর্থনে পোস্টার

নির্বাচনের আগে তৃণমূল কংগ্রেসের অন্দল মহলে অস্বস্তি রেস যেন কাটছেই না। এই ঘটনাপ্রবাহের একেবারে শীর্ষে আছে পোস্টার বিতর্ক। সদ্য মন্ত্রীত্ব থেকে ইস্তফা দিয়েছেন শুভেন্দু অধিকারী। তাঁর সমর্থনেও রাজ্যজুড়ে পোস্টার পড়তে দেখা যায়। তাঁর জল্পনা অমীমাংসিত হয়েই আছে এখনও পর্যন্ত। জল্পনার মধ্যেই ফের বনমন্ত্রী তথা রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়ের ছবি সহ পোস্টার-ফেস্টুন পড়তে শুরু করেছে রাজ্যের একাধিক জায়গায়।

এ নিয়ে পরপর তিনদিন পোস্টার পড়ল। রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়ের নিয়ে পোস্টার, ফেস্টুন পড়ল দুই জেলায়। সোমবারের মতো মঙ্গলবারও পোস্টার পড়তে দেখা যায় তাঁর নিজের জেলা হাওড়াতে।

মঙ্গলবার বনমন্ত্রীর পোস্টার চোখে পড়ে তাঁর নিজের জেলা হাওড়াতে। হাওড়ার বালিখাল ও নীমতলা সহ একাধিক জায়গায় ছবি-সহ পোস্টার দেখা যায়। পোস্টারে দেখা যায়, ‘শীত-গ্রীষ্ম-বর্ষা রাজীবদা ভরসা’, কোথাও লেখা, ‘কাজের মানুষ কাছের মানুষ রাজীবদা মানেই আবেগ’, কোথাও আবার লেখা, ‘দিকে দিকে লাখে লাখে চাইছে মানুষ রাজীবদাকে’। অন্যদিকে একিরকম ছবি সহ পোস্টার-ফেস্টুন পড়েছে বাঁকুড়া শহরের মাচানতলা ও স্টেট ব্যাংক মোড়ে। এখানে পোস্টার-ফেস্টুন দেওয়া হয়েছে, ‘আমরা রাজিবপন্থীদের নামে’। আর পোস্টারগুলির নিচে লেখা ‘দাদার সমর্থকবৃন্দ’।

কে বা কারা দিচ্ছে এই পোস্টার-ফেস্টুন? কারাই বা আছে নেপথ্যে উদ্দেশ্য কী? নেপথ্যে বিজেপি রয়েছে বলে অভিযোগ তুলেছেন ঘাস্ফুল শিবির। বাঁকুড়ার তৃণমূল কংগ্রেসের জেলা সভাপতি শ্যামল সাঁতরা বলেন, ‘ বিরোধীদল সবসময় কুৎসা এবং অপপ্রচারে লিপ্ত রয়েছেন তাঁর অন্যতম দিক এই জায়গাতে। সুতরাং তারা চাইছে এভাবে মানুষকে বিভ্রান্ত করে ভোটে জিতবো’। অন্যদিকে বিজেপি সাংসদ সুভাষ সরকার বলেন, ‘ তৃনমূল দলটাতে যদু বংশের মুসুল পর্ব শুরু হয়ে গেছে, এবার তৃণমূল তাসের ঘরের মতো ভেঙে পড়বে। ভারতীয় জনতা পার্টি এমনিতেই ক্ষমতাই আসবে এবং ২০০ এর বেশি শিট পাবো।

গত রবিবার হরিদেবপুরে গিয়ে ক্ষোভ উপরে দেন রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়। এরি সঙ্গে একটি তাৎপর্যপূর্ণ মন্তব্য করেন, “যাঁরা যোগ্যতার সঙ্গে কাজ করছেন তাঁরাই প্রাধান্য পাচ্ছেন না। যোগ্যতার সঙ্গে কাজ করার চেষ্টা করেছি। সঙ্গে সঙ্গে পিছনের সারিতে ফেলে দিয়েছে।” তিনি আরও বলেন, “দক্ষতার সঙ্গে, যোগ্যতার সঙ্গে যাঁরা সততা ও নিষ্ঠার সঙ্গে কাজ করতে চান, তাঁদের প্রথম সারিতে থাকতে দেওয়া হয় না।” রাজীবের সেই মন্তব্যের পরেই রীতিমতো সরগরম হয়ে ওঠে রাজ্য রাজনীতি।

আরও পড়ুন

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

টাটকা আপডেট

সবচেয়ে জনপ্রিয় সংবাদ