Wednesday, June 23, 2021

করোনার দ্বিতীয় ঢেউ থেকে বাঁচার সম্পূর্ণ গাইডলাইন

করোনাভাইরাসের দ্বিতীয় ঢেউ আছড়ে পড়েছে দেশজুড়ে। প্রতিদিন হাজার হাজার মানুষ আক্রান্ত হচ্ছেন করোনাতে। সবচেয়ে মারাত্মক বিষয় হল এই দ্বিতীয় ঢেউয়ে শিশুরাও সংক্রমিত হচ্ছে। প্রথম স্টেজে করোনা শিশুদের ওপর সেভাবে প্রভাব ফেলছিল না। কিন্তু নতুন স্ট্রেইনে আক্রান্ত হচ্ছে শিশুরাও এবং অনেকেই গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়ছে। এই সেকেন্ড স্টেজে সকলকেই সাবধানতা অবলম্বন করতে হবে।

কখন টেস্ট করাবেন?
আপনি যদি বোঝেন আপনার শরীরে জ্বর, শরীরে বা জয়েন্টে ব্যথা, বমি বমি ভাব, ক্লান্তি বা ঝিমুনি, গন্ধ না পেলে, স্বাদ না পেলে অথবা শ্বাসকষ্ট রয়েছে তাহলে আপনার টেস্ট করানো উচিত। দ্বিতীয় ঢেউতে নতুন উপসর্গ দেখা যাচ্ছে। আপনার চোখ গোলাপি হয়ে যেতে পারে, পেট খারাপ হতে পারে।

কখন টেস্ট করবেন না?
ভ্যাকসিন নিয়েছে এমন মানুষ যদি আপনার ভ্যাকসিন নেওয়ার পর ২ সপ্তাহ অতিক্রম হয়ে যায় এবং কোনও উপসর্গ না থাকে তাহলে করোনা রোগীর সংস্পর্শে এলেও পরীক্ষা করানোর দরকার নেই।

কোন টেস্ট করাবেন?
আরটি-পিসিআর করাতে পারেন। র‍্যাপিড অ্যাটিজেন টেস্ট আপনাকে স্পট রিপোর্ট দিয়ে দেবে। যদি এই রিপোর্ট পজিটিভ আসে তাহলে আপনি করোনা আক্রান্ত। যদি র‍্যাপিড অ্যাটিজেন টেস্টে নেগেটিভ আসে এবং আপনার শরীরে উপসর্গ থাকে তাহলে আরটি-পিসিআর টেস্ট করান।

সিটি ভ্যালু এবং সিটি স্কোর
আরটি-পিসিআর সিটি ভ্যালু হল সাইকেল থ্রেসহোল্ড ভ্যালু। এটি হল রোগীর ভাইরাল লোড মার্কার। যদি এটি কম থাকে তাহলে বুঝবেন আপনি বেশি মাত্রায় করোনা আক্রান্ত।

কোভিড-১৯ এর বিভিন্ন ষ্টেজ

ষ্টেজ-১: হোম কোয়ারেন্টাইন অথবা আইসোলেশন ওয়ার্ড

উপসর্গহীনতা: কোনও মেডিক্যাল লক্ষণ ছাড়া এবং টেস্ট স্ক্যাক করা স্বাভাবিক।

পরিস্থিতি: অল্প জ্বর, অবসাদ, পেশি ব্যথা, গলায় ব্যথা, সর্দি হওয়া, হাঁচি, বমি, পেটে ব্যথা এবং ডায়রিয়া।

ষ্টেজ-২(a): আইসোলেশন ওয়ার্ড/ হাসপাতাল/ আইসিইউ

পরিস্থিতি: বারবার জ্বর আসা, কফ, বুকের ব্যথায় সিটি স্ক্যান

ষ্টেজ-২(b): আইসিইউ
SpO2 সহ গুরুতর নিউমোনিয়া

ষ্টেজ ৩: আইসিইউ

পরিস্থিতি: সংকটজনক, শ্বাস-প্রশ্বাসের সমস্যা, করোনারি হার্ট ব্যর্থতা, কিডনির ক্ষয়

আরও পড়ুন

টাটকা আপডেট

সবচেয়ে জনপ্রিয় সংবাদ