Wednesday, June 23, 2021

অনলাইন থেকে ইনকামের সেরা ১০টি উপায়

অনলাইন ইনকাম বিষয়টি কিছু বছর আগে অজানা বা কঠিন হলেও এখন কিন্তু তার থেকে অনেক সহজ। যত দিন যাচ্ছে আমরা ততই ইন্টারনেটের প্রতি ঝুঁকে পড়ছি। বর্তমান প্রযুক্তির যুগে মানুষ সকালে ঘুম থেকে ওঠা থেকে রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগ পর্যন্ত প্রযুক্তির উপরে নির্ভরশীল। মানুষের এই প্রযুক্তির প্রতি ঝুঁকি ইন্টারনেটে ইনকামের অনেক দার উম্মোচন করেছে।

অনলাইন থেকে মানুষ খুব সহজেই ভালো পরিমানের অর্থ উপার্জন করছে। বিশ্বের ৭০ শতাংশ মানুষ এই অনলাইন ইনকাম (Online Income) এর উপরে নির্ভরশীল।

খুব সহজেই ইন্টারনেটের মাধ্যমে বিভিন্ন পদ্ধতিতে আপনিও ইনকাম করতে পারবেন। এছাড়াও অনলাইনে নিজের ব্যবসা গড়ে অর্থোপার্জন করতে পারবেন। এখানে আমরা অনলাইন আয়ের সেরা ১০টি উপায় তুলে ধরবো। এই অনুচ্ছেদটি আপনাকে অনেক সহায়তা করবে।

অনলাইন আয় এর সেরা ১০টি উপায়
অনলাইন ইনকাম করতে কেনা না চায়! অনলাইন থেকে ইনকাম করার সবারই মন চায়। কিন্তু সঠিক উপায় জানা না থাকার কারনে অনলাইন থেকে ইনকাম করতে পারে না। অনলাইন থেকে ইনকাম করার বিভিন্ন মাধ্যম আছে। এর মধ্যে টপ সেরা ১০টি উপায় নিচে দেওয়া হল-

অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং:- অনলাইন ইনকামের সেরা মাধ্যমগুলির মধ্যে একটি জনপ্রিয় মাধ্যম হল অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং (Affiliate Marketing)। অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং হল অনলাইনে অর্থ উপার্জনের একটি স্বল্প ব্যয় এবং তুলনামূলক সহজ উপায়। অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং মূলত অন্য কোনো কোম্পানীর প্রোডাক্ট বা সার্ভিস বিক্রি করার মাধ্যমে যখন একজন মার্কেটার একটি নির্দিষ্ট পরিমান কমিশন উপার্জন করেন তাকে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং বলা হয়।

ইউটিউবিং:- প্যাসিভ ইনকামের সেরা উপায় হল ইউটিউব। ইউটিউবের মাধ্যমে সরকারি চাকরির মত ইনকাম করা যায় এবং সেটা সরকারি চাকরির থেকে অনেক বেশি। পৃথিবীর ৫০ শতাংশ মানুষ ইউটিউবকে পেশা বানিয়ে লক্ষ লক্ষ টাকা ইনকাম করছে। তবে আজ বললে কাল থেকে ইনকাম করা যাবে না। তাঁর জন্য অবশ্যই রাখতে হবে ধৈর্য ও পরিশ্রম। কোনো জিনিসের প্রতি লেগে না থাকলে কোনো কিছুই পাওয়া যাবে না। লেগে থাকলে ৬ মাস বা ১ বছর পর কঠোর পরিশ্রমের ফল হিসেবে যা পাওয়া যাবে সেটা ভাবনার বাইরে। তাই দেরি না করে নেমে পড়ুন ইউটিউবে।

প্রফেশনালভাবে ইউটিউবে কাজ করতে চাইলে তাহলে ভিডিওর অডিও ও ভিডিও এডিটিং খুবই ভালো ভাবে করতে হবে। এক হাজার সাবস্ক্রাইবার পূর্ণ হলে এবং ন্যূনতম ভিউ টাইম হয়ে গেলে আপনি মানিটাইজেশন এর জন্য আবেদন করতে পারবেন। এর পরে প্রতিটা ভিডিওতে মানিটাইজেশন একটিভেট করে নিলেই আপনার ইনকাম শুরু হয়ে যাবে।

ফ্রিলান্সিং:- অনলাইনে সবথেকে যে পদ্ধতিতে মানুষ বেশি আয় করে সেটি হল ফ্রিলান্সিং। এই পদ্ধতিতে কাজ করে বেশিরভাগ মানুষ তাঁদের বেকারত্ব কমিয়ে আনতে পেরেছে। তাই এই ফ্রিলান্সিং এ যোগদান করে আপনিও টাকা আয় করার পাশাপাশি এই গৌরবের অংশীদার হতে পারবেন।

ফ্রিলান্সিং বলতে মূলত বিভিন্ন ধরনের কাজ যেগুলি আপনি বাড়িতে বসে করে অর্থ উপার্জন করতে পারবেন। এক্ষেত্রে আপনার ক্লায়েন্ট গোটা পৃথিবীর যেকোনো জায়গা থেকে হতে পারে।

ফ্রিলান্সিং এর মাধ্যমে যেসব করতে পারেন তা হল- গ্রাফিক্স ডিজাইনিং (Graphics Design), হতে পারে ফটো এডিটিং (Photo Editing), হতে পারে ওয়েব ডিজাইনিং (Web Design), ওয়েব সাইট মেকিং (Website Making), কপি রাইটিং (Copywriting), কন্টেন্ট রাইটিং (Content Writing), লোগো ডিজাইন (Logo Design), ইত্যাদি।

এসবের মাধ্যমে যেকোনো একটি দক্ষতা অর্জন করতে পারলেই ফ্রিলান্সিং করতে পারবেন। আপনি যদি একের অধিক দক্ষতা অর্জন করেন তাহলে ইনকামের সুযোগ টাও বেশি হয়ে যাবে।

কাজ শেখার পর যেসব সাইটে ফ্রীলান্সিং কাজ করতে পারবেন তা হল- Freelancer, Upwork, Fiver, Peopleperhour ইত্যাদি। এখানে আপনার তথ্য দিয়ে অ্যাকাউন্ট খুলে কাজে নেমে পড়ুন।

ব্লগিং:- কয়েক বছর আগেও ব্লগিংকে শুধু শখ হিসেবে নেওয়া হতো। বর্তমানে ব্লগিংকে অনলাইন থেকে অর্থ উপার্জনের একটি কার্যকর উপায় হিসেবে বিবেচনা করা হয়।

ব্লগ থেকে অর্থ উপার্জনের জন্য প্রথমেই আপনাকে একটি ব্লগ তৈরি করতে হবে। এরপর নিজের ব্লগকে নিয়মিত হালনাগাদ করতে হবে। আপনার যে বিষয়ে আগ্রহ, জ্ঞান বা অভিজ্ঞতা বেশি সে বিষয়ে ব্লগিং করলে তা সবথেকে বেশি কাজে দেয়। মানি ব্লগিংয়ের জন্য প্রয়োজন কঠোর অধ্যবসায়, দক্ষতা ও যথাযথ পরিকল্পনা মেনে এগিয়ে চলতে হবে।

ব্লগ থেকে ইনকাম করার জন্য গুগল এডসেন্স এপ্রুভ পেতে হবে। আপনার ব্লগ তখনই অর্থ উপার্জন করবে, যখন কেউ সেখানে থাকা কোনো বিজ্ঞাপনে ক্লিক করবে। দর্শকরাই হলো সেই সোনার খনি, যাদের আপনি আপনার পণ্য বা পরিষেবা বিক্রি করতে যাচ্ছেন। আর এই ওয়েব ট্রাফিক আপনার ব্লগের প্রাণ, অর্থাৎ উপার্জনের উৎস।

অনলাইনে পণ্য বিক্রয়:- আপনি যদি সঠিক ব্যবসায়িক উদ্যোগের সন্ধান করেন যা অল্প সময়ের মধ্যে ভাল অর্থ উপার্জন করতে সহায়তা করে তবে আপনি হোম-ভিত্তিক ব্যবসায় বেছে নিতে পারেন। বিশ্বব্যাপী বাজার আজ অনেক ব্যবসার সুযোগ খোলা আছে এবং হোম ব্যবসায় তাদের মধ্যে একটি। ইকমার্স ব্যবসা হোম বিজনেসের অন্যতম জনপ্রিয় ফর্ম। পন্য বিক্রি করার জন্য অ্যামাজন, ফ্লিপকার্টের মতো প্ল্যাটফর্মগুলো ব্যবহার করতে পারেন।

অনলাইন টিউটরিং:- আপনি যদি কোনও নির্দিষ্ট বিষয়ে বিশেষজ্ঞ হন তবে আপনি অনলাইনে পড়িয়ে উপার্জন করতে পারবেন। অনলাইন টিউটরিং সারা দেশে সমস্ত বয়সের শিক্ষার্থীদের সাথে অনলাইনে সংযোগ স্থাপন করে তাঁদের শিক্ষাদান করতে পারেন।

অনলাইনে টিচিং করানোর জন্য বেশ কিছু জনপ্রিয় সাইট রয়েছে যেমন- Vedantu.com, MyPrivateTutor.com, BharatTutors.com, tutorindia.net ইত্যাদি। যেখানে আপনি আক্যাউন্ট তৈরি করতে হবে। যে বিষয়ে আপনি পড়াতে চান তার অভিজ্ঞতা ও আপনার যোগ্যতা যুক্ত করে অনলাইন টিউটর হিসাবে কাজ করতে পারবেন।

এরপর সেখানে পড়ানোর জন্য আপনাকে একটি সাধারন ফর্ম পূরণ করে আবেদন করতে হবে। এবং তার পরে বিশেষজ্ঞদের ইন্টারভিউ দিতে হবে। নির্বাচিত হয়ে গেলে ডকুমেন্টেশন সহ প্রোফাইল তৈরি করে ওয়েবিনারে যোগ দিয়ে শিক্ষক হিসাবে তালিকাভুক্ত হয়ে যাবেন এবং আপনার অনলাইন সেশনগুলি পরিচালনা করতে পারবেন। নতুনরা প্রতি ঘন্টা প্রায় ২০০ টাকা উপার্জন করতে পারে, আপনি অভিজ্ঞতা এবং দক্ষতা অর্জন করার সাথে সাথে ৫০০ টাকা পর্যন্ত যেতে পারে।

পিটিসি সাইট:- পিটিসি(PTC) যার ফুল ফর্ম হল পেইড টু-ক্লিক (Paid to click)। বেশ কয়েকটি ওয়েবসাইট বিজ্ঞাপনে ক্লিক করে অর্থ উপার্জনের অফার করে। তাই তাদেরকে পেইড টু-ক্লিক (পিটিসি) সাইট বলা হয়। পেইড টু ক্লিক (পিটিসি) একটি অনলাইন ব্যবসায়ের মডেল যা বাড়ি থেকে অর্থ উপার্জনের লক্ষ্য নিয়ে লোকেরা অনলাইন ট্র্যাফিক আকর্ষণ করে। পিটিসি ওয়েবসাইটগুলি বিজ্ঞাপনদাতাদের এবং ভোক্তাদের মধ্যে মধ্যস্থতা হিসাবে কাজ করে। বিজ্ঞাপনদাতা পিটিসি ওয়েবসাইটে বিজ্ঞাপন প্রদর্শন করার জন্য অর্থ প্রদান করে এবং বিজ্ঞাপনটি দেখলে এই অর্থের একটি অংশ দর্শকের কাছে যায়। এরকম কয়েকটি সাইট হল ClixSense.com , BuxP, NeoBux ইত্যাদি।

ডাটা এন্ট্রি:- এটি অনালাইনে করা সহজ কাজ গুলোর মধ্যে একটি। এতে কোনো দক্ষতার প্রয়োজন নেই। আপনার কাছে কেবল একটি কম্পিউটার, ইন্টারনেট সংযোগ, দ্রুত টাইপিং দক্ষতা থাকলেই এই কাজ করতে পারবেন। বেশিরভাগ ফ্রিল্যান্সিং ওয়েবসাইটগুলিতে এই ধরনের কাজ হয়। ডাটা এন্ট্রি করে প্রতি ঘণ্টায় ৩০০ টাকা থেকে ১,৫০০ টাকা উপার্জন করা সম্ভব। তাই দেরি না করে নেমে পড়ুন এই কাজে।

আরও পড়ুন

টাটকা আপডেট

সবচেয়ে জনপ্রিয় সংবাদ