Wednesday, June 23, 2021

৭দিনে ঘরোয়া উপায়ে ত্বককে ফর্সা করে তুলবেন কীভাবে!

আমরা এমন একটি দেশে বসবাস করি যেখানের সমাজ ফর্সা ত্বকে আচ্ছন্ন হওয়ার দোষে দোষী। এখনও আমাদের সমাজ ফর্সা ত্বকের প্রশংসা করে চলছে এবং যারা কালো তারা সমাজ থেকে পিছিয়ে পড়ছে। যেন সমাজে তাদের কোন মূল্যই নেই। তার জন্য আমরা বাজার থেকে ক্রীম এবং লোশনগুলি সংগ্রহ করি, যেগুলি সপ্তাহের মধ্যে ফর্সা ত্বকের প্রতিশ্রুতি দেয়, তবে সেগুলি ভালো করার থেকে বেশি ক্ষতি করে। আপনার ত্বককে আলোকিত করার জন্য প্রয়োজনীয় প্রাকৃতিক উপাদানগুলি ব্যবহার করা গুরুত্বপূর্ণ যাতে বছরের পর বছর ধরে আপনার ত্বক সুস্থ থাকে। ফর্সা ত্বকের জন্য আমরা বিভিন্ন ধরনের ক্যেমিকাল ব্যবহার করি যা উপকার করার থেকে বেশি ক্ষতি করে ।

তাই আজকে আমরা জানবো ঘরোয়া পদ্ধতিতে ৭ দিনের মধ্যে ফর্সা ত্বক পাওয়ার টিপসগুলি-

ছোলা ময়দাঃ- ছোলা ময়দা যা “বেসন” নামে পরিচিত। এটি একটি দুর্দান্ত এক্সফোলিয়েন্ট যা ত্বকের পুরানো এবং মৃত কোষগুলি সরিয়ে দেয়। বেসন এর সাথে একটু গোলাপজল মিশিয়ে নিন নরম ও আর্দ্র ত্বক পাওয়ার জন্য। বিকল্পভাবে আপনি এটি দুধের সাথেও মিশ্রিত করতে পারেন। দুধে ল্যাকটিক অ্যাসিড রয়েছে যা ত্বককে উজ্জ্বল করতে সাহায্য করে। এর সাথে আপনি এক চিমটি হলুদ যোগ করতে পারেন যা ত্বকের ব্রণর মতো ব্যাধি দূর করতে সাহায্য করে এবং পুরানো দাগও ভালো করে। প্রতিদিন পেস্ট তৈরি করে আপনার মুখে লাগান যা ত্বককে নরম এবং আপনাকে তরুন করে তোলে। একটি সুন্দর এবং উজ্জ্বল ত্বক পেতে এক সপ্তাহ এটি অনুসরন করুন।

দইঃ- দই শুধু পেটের পক্ষে ভালো তা নয়। দুধের মতো দইতেও ল্যাকটিক অ্যাসিড থাকে। ল্যাকটিক অ্যাসিড এবং একটি লাইটেনার আপনার ত্বক ফর্সা করতে সাহায্য করে।
দই আপনার মুখে লাগালে তা চকচক করতে পারে। কিন্ত তার সাথে যদি আপনি হলুদ যুক্ত করতে পারেন তাহলে তা আপনার মুখকে উজ্জ্বল করে তোলে। এই ফেস প্যাকটি প্রতিদিন এক সপ্তাহের জন্য প্রয়োগ করুন।

পেঁপেঃ- পেঁপেতে রয়েছে ‘পাপাইন’ নামক এনজাইম, যা হালকা রঙ অর্জনে সহায়তা করে। কোরিয়া এবং জাপানে ব্যবহৃত সৌন্দর্যের পণ্যগুলিতে পেঁপে ব্যবহার করা হয়। পেঁপেকে টুকরো করে কেটে সেগুলির পেস্ট তৈরি করুন। সেটি আপনার মুখে লাগান। ২০-২৫ মিনিট রাখার পর ধুয়ে ফেলুন। আপনি তাৎক্ষণিকভাবে একটি আভা লক্ষ্য করতে পারবেন ।

মিল্ক ক্রিমঃ- দুধের ক্রিম একটি দুর্দান্ত ময়েশ্চারাইজার। এই মুখোশটি শুষ্ক ত্বকের মানুষদের জন্য বিশেষ উপকারি। মিল্ক ক্রিম যা ‘মালাই’ নামে পরিচিত যা আবার দই এবং খাঁটি দুধের মতো ল্যাকটিক অ্যাসিড ধারণ করে। এটি মুখে লাগিয়ে ২০ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন। এটি আপনার ত্বককে অত্যন্ত নরম রাখবে। ৭ দিন ব্যবহার করলে এর উপকারিতা বুঝতে পারবেন।

মধুঃ- মধুতে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট এর বৈশিষ্ট্য রয়েছে যা সূক্ষ রেখাগুলি থেকে মুক্তি পেতে এবং রিঙ্কেল প্রতিরোধে সহায়তা করে। মধুতে রয়েছে পারক্সাইড যা ত্বককে হালকা করতে সহায়তা করে। মধুকে নিয়ে ত্বকের উপর লাগান ১০-১৫ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন।

আলুর পেস্টঃ- আলু ভিটামিন সি এবং নিয়াসিন সমৃদ্ধ, যা আপনার ত্বককে হালকা করে। একটি আলুকে নিয়ে তাতে দুধ মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করুন। সেরা ন্যায্যতার ফলাফলের জন্য প্রতিদিন ব্যবহার করুন।

আপেল মাস্কঃ- আপেলগুলিতে ম্যালিক অ্যাসিড থাকে যা এক সপ্তাহের মধ্যে আপনার ত্বকের স্বর হালকা করতে সহায়তা করে। একটি আপেল নিয়ে সেটি ম্যাশ তৈরি করুন এবং আপনার পছন্দ অনুযায়ী তাতে দুধ বা মধু যোগ করতে পারেন। এটি কিছু সময়ের জন্য আপনার ত্বকে লাগান। এই ফলটিতে প্রচুর পরিমাণে আলফা হাইড্রোক্সি অ্যাসিড রয়েছে যা ত্বককে উজ্জ্বল ও আলোকিত করতে সহায়তা করে।

আরও পড়ুন

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

টাটকা আপডেট

সবচেয়ে জনপ্রিয় সংবাদ