Wednesday, June 23, 2021

কৃষক বিক্ষোভের প্রতিবাদে Jio Sim বয়কটের ডাক, সোশ্যাল মিডিয়ায় ট্রেন্ডিং বয়কট জিও

১৪ দিন ধরে অব্যাহত কৃষক ‘বিদ্রোহ’। দেশজুড়ে আরও তীব্র আকার ধারন করছে কৃষক বিক্ষোভ। কেন্দ্রের নয়া কৃষি বিলের প্রতিবাদ জানাচ্ছেন দেশের বিভিন্ন প্রান্তের কৃষক থেকে শুরু করে সাধারন মানুষ। দিল্লির কৃষক আন্দোলনের আঁচ এবার সরাসরি গিয়ে পড়ল দেশের নামজাদা ব্যবসায়ী গৌতম আদানি থেকে শুরু করে মুকেশ আম্বানিদের যাবতীয় সার্ভিস বর্জনের ডাক দিলেন কৃষকেরা। বুধবার সোশ্যাল মিডিয়ায় হঠাৎই ট্রেন্ডিং হয়ে যায় বয়কট জিও (#BoycottJio)। কৃষকদের দাবির পাশে দাঁড়িয়ে সুর চড়ায় নেটদুনিয়ার বাসিন্দারাও।

কৃষি আইন সংশোধন করার জন্য কেন্দ্র কর্তৃক প্রণীত পাঁচটি প্রস্তাব নিয়ে, আলোচনা করার পর শেষমেশ সেই প্রস্তাবও খারিজ করে দেন আন্দোলনরত কৃষকরা। তাঁদের তরফে সাফ জানিয়ে দেওয়া হয়, কৃষি আইনই প্রত্যাহার করতে হবে। নাহলে তাদের আন্দোলনকে আরও বাড়ানোর ইঙ্গিত দেয়। সেই কারণেই তাঁরা এতদিন ধরে লাগাতার প্রতিবাদ জানাচ্ছেন। তাঁদের দাবি মোদী সরকার না মানলে আগামী ১২ ডিসেম্বর দিল্লি-জয়পুর এবং দিল্লি-আগ্রা হাইওয়ে ব্লক করা হবে বলে জানান। তাঁর পাশাপাশি কোনও টোল প্লাজায় টোল ট্যাক্সও দেবেন না তাঁরা।

এরপরই কৃষকদের সমর্থন জানিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় জিও পরিষেবা বয়কটের ডাক ওঠে। তৈরি হয়ে যায় নানা মিম। অনেকেই বলতে থাকেন, করোনা কালেও এই বিজেপি সরকারের জন্যই পকেট ভারি হয়েছে আম্বানি-আদানিদের। অথচ, কৃষকদের দাবি মানতেই সমস্যা কেন্দ্রের। অনেকে আবার বলেন, কৃষকদের সমর্থন জানাতে তাঁরাও জিও সিমের পিছনে আর অর্থ খরচ করবেন না।

এরপরই কৃষকদের সমর্থন জানিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় জিও পরিষেবা বয়কটের ডাক ওঠে। খবরটি সর্বপ্রথম শেয়ার করেন দেশের অন্যতম স্বতন্ত্র সাংবাদিক সন্দীপ সিং। ট্যুইটারে সন্দীপ লেখেন, ‘কেন্দ্র সরকারের প্রস্তাব মানতে নারাজ কৃষকেরা। আর তারপরই তাঁরা আদানি এবং আম্বানির প্রডাক্ট বর্জনের ডাক দিয়েছেন। তার সঙ্গেই তাঁরা Jio Sim-ও বয়কট করতে চলেছেন।’ আর সন্দীপ এই ট্যুইটটি শেয়ার করার পরই তা ট্যুইটারে ট্রেন্ডিং হয়ে যায় #BoycottJio, #JioSim ইত্যাদি হ্যাশট্যাগে।

কৃষকদের এই Jio Sim বয়কটের ডাক বড়সড় আঘাত দিতে চলেছে আম্বানির টেলিকম সংস্থার উপর। সেই ২০১৬ সালের সেপ্টেম্বর থেকেই প্রায় প্রত্যেক মাসেই গ্রাহক সংখ্যা বাড়িয়ে নিচ্ছে জিও। আর কৃষকদের এই বয়কটে, আম্বানি কোম্পানির বড় ধাক্কা খাওয়ার অন্যতম কারন হল, তাঁদের বেশিরভাগ কাস্টোমার মধ্যবিত্ত বা গরীব। আর সেই দিক দেখতে গেলে দেশের অধিকাংশ কৃষক এবং তাঁদের পরিবারও ব্যবহার করে থাকেন Jio Sim। তাই কৃষক সমাজের এই বয়কটের ডাক আম্বানিকে বিপদে ফেলবে, তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না।

আরও পড়ুন

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

টাটকা আপডেট

সবচেয়ে জনপ্রিয় সংবাদ