Wednesday, June 23, 2021

দীর্ঘক্ষন হেডফোন ব্যবহার ডেকে আনছে নানান সমস্যা

সুযোগ পেলেই কানে হেডফোন বা ইয়ারফোন লাগিয়ে গান শুনতে শুরু করেন! দীর্ঘ সময় ধরে হেডফোন ব্যবহার করলে হতে পারে মারাত্মক সমস্যা। হাই ভলিউমে কখনই হেডফোন ব্যবহার করবেন না। ৯০ ডেসিবেল বা তার চেয়ে বেশি মাত্রার আওয়াজ সরাসরি কানে লেগে হতে পারে কানের সমস্যা। এমনকি আপনি হারিয়ে ফেলতে পারেন শ্রবণ শক্তিও। সারাদিন অফিসের খাটুনির পর বিশ্রামের সময়টুকুও হেডফোন ব্যবহার করে গান শোনা বা ভিডিও দেখার জন্য বসে পড়ি। বর্তমান সময়ে হেডফোন ছাড়া বাইরে বেড়ানো দায়। বাসে, ট্রামে, কিংবা রাস্তায় হাঁটতে হাঁটতে সব জায়গার সঙ্গী হেডফোন। এমন অভ্যাস যদি আপনার থেকে থাকে তবে আপনি নিজেই নিজের কত বড় ক্ষতি করছেন জেনে নিন।

ঝিমুনিভাব:- আপনি কি ইয়ারফোনে গান শোনেন? তাহলে সাবধান হন, এই জোরে আওয়াজ আপনার কানের শিরা উপশীরায় চাপ তৈরি করে। যার ফলে আপনার ঝিমুনিভাব তৈরি হতে পারে সবসময়।

কানে কম শোনা:- প্রচুর আওয়াজ আপনার শ্রবনক্ষমতা কেড়ে নিতে পারে। এর ফলে ডেকে আনতে পারেন বধিরতা। দীর্ঘক্ষন কানে হেডফোন লাগিয়ে গান শুনলেও শ্রবনক্ষমতা নষ্ট হতে পারে।

মস্তিস্কে চাপ পড়া:- ইলেক্ট্রোম্যাগনেটিক ওয়েভ ইয়ারফোন ব্যবহার করলে বের হয়। এর দীর্ঘমেয়াদী ব্যবহারে মস্তিস্কে খারাপ প্রভাব পড়তে পারে। হাই ডেসিবেলের নয়েজ নার্ভের ফাইবার তুলে দেয়। এর মাধ্যমেই মস্তিষ্ক থেকে কানে সিগন্যাল যায়। তাই কানের ক্ষতি হলে, মাথারও ক্ষতি।

কানে ব্যথা:- ইয়ারফোনের ব্যবহার কানে ব্যথারও কারন হতে পারে। এর দীর্ঘমেয়াদী ব্যবহারের ফলে হতে পারে কানে ব্যথা। ধীরে ধীরে তা কানের ভেতরেও ছড়িয়ে পড়তে পারে। কান ফুলে ওঠে। এরপর চিবুক থেকে মাথা পর্যন্ত ব্যথা ছড়িয়ে পরে।

আরও পড়ুন- ল্যাপটপ চার্জে দিয়ে চালালে কি ল্যাপটপের ক্ষতি হয়, নাকি চার্জে দিয়ে চালানোই ভালো!

অসাড় কান:- সম্প্রতি একটি সমীক্ষাই দেখা গিয়েছে, সারাদিন হেডফোন দিয়ে জোরে গান শুনলে কান অসাড় হয়ে যেতে পারে। কান কিছু সময়ের জন্য অসাড় হয়ে আবার স্বাভাবিক হতে পারে। এর ফলে ভবিষ্যতে কালা হয়ে যেতে পারে মানুষ।

কানে সংক্রমন:- কানের মধ্যে হাওয়া চলাচল বন্ধ করে সংক্রমন বাড়িয়ে দিতে পারে হেডফোন। এরপর যখন হেডফোন কাউকে দেওয়া হয়, সেই ব্যাকটেরিয়া অন্যের মধ্যে ছড়িয়ে পড়তে পaারাে। ফলে কানে খারাপ সংক্রমন হতে পারে।

কানের ক্ষতি না করে কীভাবে ইয়ারফোন ব্যবহার করবেন?

  • ছোটো ইয়ারফোন ব্যবহার করুন।
  • অন্যের সঙ্গে ইয়ারফোন শেয়ার করবেন না।
  • মাসে একবার করে ইয়ারফোনের কভার পাল্টে নিন।
  • গাড়ি, ট্রেন, মেট্রো বা হাঁটার সময় ইয়ারফোন ব্যবহার করবেন না।
  • ইয়ারফোনে শোনার সময় কমিয়ে দিন।

আরও পড়ুন

টাটকা আপডেট

সবচেয়ে জনপ্রিয় সংবাদ