Wednesday, June 23, 2021

প্রচন্ড গরমে সুস্থ থাকার উপায়

গ্রীষ্মের সকালে ঘুম থেকে তোলার জন্য সূর্যি মামা উঠে বসে থাকে। তার তীব্র তেজ বেলা বাড়ার সাথে সাথে তার দাপট বাড়তে থাকে। এই গরমে অতিষ্ঠ করে তুলছে মানবজীবন। যেখানে বাতাস ও বৃষ্টির ধরা ছোঁয়াও নেই। সন্ধ্যায় সূর্যটা বিদায় হলেও রেখে যাই গুমোট প্রকৃতি। তার ফলে সারা রাতেও নিস্তার মেলে না। আর তাতেই ঘেমে নেয়ে করুন অবস্থা হয়ে যায় সকলের।

এই প্রচন্ড গরমের দিনে যে কোনো সময় অসুস্থ হয়ে যেতে পারি আমরা। কারন পরিবেশের তাপমাত্রা বাড়ার সাথে সাথে শরীরের তাপমাত্রা বাড়তে থাকে। এই গরমের হাত থেকে নিজেকে সুস্থ রাখাটা খুবি জরুরি। তাই তীব্র গরমে আমাদেরকে সুস্থ থাকতে কিছু ব্যবস্থা অবশ্যই নিতে হবে। তাই জেনে নেওয়া যাক পরামর্শগুলি-

পানি পান:- গরমে শরীরে প্রচুর ঘামের কারনে দেহের প্রয়োজনীয় লবন পানি বের হয়ে যায়। তাই দিনে প্রচুর পরিমানে পানি পান করুন। এছাড়া ফলের জুস, ডাব ও লেবুর শরবত খেতে পারেন। এতে করে শরীরের দুর্বলতা কাটিয়ে ভেতরে স্বস্তি এনে দেয় এবং শরীরের আদ্রতা বজায় থাকে।

হালকা পোশাক:- অতিরিক্ত গরম থেকে বাঁচতে পোশাকের দিকে অবশ্যই নজর দিতে হবে। কারন গাঢ় রঙের পোশাক রোদ শোষণ করে এতে গরম অনুভূত হয় বেশি। তাই পোশাক হতে হবে ঢিলেঢালা হালকা রঙের সুতি কাপড়ের। এতে করে গরমে অনেক বেশি স্বস্তি পাবেন।

শাক-সবজি ও ফল:- প্রচন্ড গরমে শরীরকে সুস্থ রাখতে প্রচুর পরিমানে শাক-সবজি ও ফলমূল খেতে পারেন। কারন শাক-সবজিতে প্রচুর পরিমানে ভিটামিন ও খনিজ উপাদান থাকায় অতিরিক্ত ঘামেও শরীর অসুস্থ হয়ে পড়ার সম্ভবনা থাকে না। তাই রোজকার খাদ্যতালিকায় শাক-সবজি ও ফলমূল রাখা জরুরি।

তৈলাক্ত খাবার পরিহার:- প্রচন্ড গরমে সবসময় হালকা জাতীয় খাবার খাওয়ার অভ্যাস গড়ে তুলুন। বেশি তেলমশলা ও তৈলাক্ত জাতীয় খাদ্য খাওয়া থেকে বিরত থাকুন। এমন খাবার খান যা সহজে হজম হয় যেমন- সবজি, ডাল, মাছ ইত্যাদি খেলে ভালো হয়। কারন মশলাদার খাবার আপনার শরীরকে বেশি গরম করে রাখে।

চশমা:- রোদের হাত থেকে চোখকে সুরক্ষা রাখার জন্য রোদচশমা ব্যবহার করুন। এ ছাড়া সূর্যের আলোয় সরাসরি যাওয়ার পরিবর্তে মাথায় ছাতা, টুপি, পায়ে জুতা-স্যান্ডেল ব্যবহার করুন।

পরিষ্কার পরিছন্ন:- গরমকালে বিভিন্ন চর্মরোগ থেকে শুরু করে নানা ধরনের শারীরিক সমস্যা দেখা দেয়। তাই গরমে সুস্থ থাকার জন্য পরিষ্কার পরিছন্নতা খুবি দরকার যেমন- পরিষ্কার জামাকাপড় পরিধান করা, খাবার আগে হাত ধুয়ে নেওয়া এবং স্বাস্থ্যকর খাবার গ্রহন করা।

চা-কফি পরিত্যাগ:- চা-কফি, অ্যালকোহল জাতীয় দ্রব পরিত্যাগ করতে হবে। প্রচন্ড গরমের অত্যাচারে যখন আপনি অতিষ্ঠ হয়ে পড়েন তখন ভুলেও পান করবেন না চা-কফি ও অ্যালকোহল জাতীয় দ্রব। কারন এগুলো বিরুপ প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি করে আপনার শরীরে। আর বাড়িয়ে দেবে পানিশূন্যতা বেশি করে।

পরিশ্রমের মাত্রা কমানো:- গ্রীষ্মের হাত থেকে রক্ষা পেতে কঠোর পরিশ্রম করা ত্যাগ করতে হবে। তা না হলে যে কেও অসুস্থ হয়ে যেতে পারে। তাই এই সময়টাই শরীরকে সুস্থ রাখতে পরিশ্রমের মাত্রা কমিয়ে আনতে হবে। প্রয়োজনে বিরতি নিয়ে কাজ করতে হবে। কারন একটানা অতিরিক্ত কাজ করলে শরীর অসুস্থ হয়ে যায়।

ছাতা ব্যবহার:- গরমের সময় বাইরে বের হলে অবশ্যই ছাতা নিয়ে বের হতে হবে। রোদের হাত থেকে নিজেকে বাঁচিয়ে চললে কষ্ট কিছুটা কম হবে।

সানস্ক্রিন ব্যবহার:- রোদে বের হলে অবশ্যই সানস্ক্রিন ব্যবহার করতে হবে। কারন সানস্ক্রিন আমাদের ত্বককে সূর্যের ক্ষতিকারক রশ্মির হাত থেকে রক্ষা করে। আমাদের আবহাওয়ার সান প্রোটেকশন ফ্যাক্টর বা এসপিএফ(SPF) ৩০-এর ওপর হতে হবে।

আরও পড়ুন

টাটকা আপডেট

সবচেয়ে জনপ্রিয় সংবাদ