Wednesday, June 23, 2021

অতিরিক্ত চা পান করলে কি কি ক্ষতি হওয়ার সম্ভবনা থাকে!

“এক কাপ চায়ে আমি তোমাকে চাই” বাঙালির একটি অতি জনপ্রিয় সঙ্গীত। সেই চা দিয়েই বাঙালির দিনটা শুরু হয়। অনেকের তো বেড টী না হলে ঘুম ই ভাঙতে চায় না। তারপরে তো চায়ের কাপে চুমুক দেওয়া সারাদিন কম বেশি লেগেই থাকে। এর মাঝেও একটু বৃষ্টি হলে চা, শীত পেলে চা, ঝিমুনি লাগলে চা পান তো চলতেই থাকে। অনেকেরই কাপের পর কাপ চা পানেও যেন বিরক্তি আসে না। অতিরিক্ত চা পান করাটাও ক্ষতিকর। একজন সুস্থ মানুষের দিনে তিন কাপের বেশি চা পান কোনো ভাবেই উচিত নয়। এই চা পানীয় প্রকৃতির হলেও চা পানেরও যে পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া থাকতে পারে, তা আমাদের মাথাতেই আসে না। চা পানেরও রয়েছে মারাত্মক কিছু পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া।

জেনে নিই অতিরিক্ত চা পান করলে কি কি ক্ষতি হতে পারে:-

ঘুমের সমস্যা:- আমাদের শরীর সুস্থ্ রাখার জন্য নিয়মমাফিক ঘুম অত্যন্ত প্রয়োজনীয়। ঘুমের সমস্যা বা অনিদ্রার এর একটি অন্যতম কারণ অতিরিক্ত চা পান করা। চায়ে থাকা ক্যাফেইন ঘুমের চক্রে মারাত্মক প্রভাব ফেলতে পারে। এই ক্যাফেইন মেলাটোনিন হরমোনের উপর প্রভাব ফেলে যা ঘুমে ব্যাঘাত ঘটায়।

হাড়ের অসুখঃ- বাজারের সস্তা চায়ের মধ্যে থাকে ফ্লোরাইড। অতিরিক্ত চা পানের মাধ্যমে এই ফ্লোরাইড শরীরে গেলে এ থেকে আমাদের হাড়ের মারাত্মক অসুখ স্কেলিটাল ফ্লুওরোসিস হতে পারে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার রিপোর্ট অনুযায়ী আমাদের শরীরে ফ্লুোরাইড এর স্বাভাবিক মাত্রা ছয় মিলিগ্রাম পর্যন্ত হওয়া দরকার। এর থেকে অতিরিক্ত মাত্রায় ফ্লুরাইড শরীরে প্রবেশ করলে স্কেলিটাল ফ্লুওরোসিস হওয়ার সম্ভাবনা প্রবল।

কোষ্ঠকাঠিন্য:- অতিরিক্ত চা পান কোষ্ঠকাঠিন্যের কারন হতে পারে। কারন চায়ে থিয়োফাইলিন নামের একটি রাসায়নিক উপাদান আছে। যা শরীরে পানিস্বল্পতা তৈরি করে এবং কোষ্ঠকাঠিন্য ঘটায়।

অস্থিরতা বাড়ায়:- ব্যস্ত জীবনের ফাঁকে একটু বিরতি নিতে চা পান বাঙালির অভ্যাস। এটি একটি উত্তেজক পানীয়, অতিরিক্ত চা পান করলে শরীরে উত্তেজনা বৃদ্ধি পাবে। তা থেকে শরীরে অস্বস্তিকর অনুভূতির জন্ম নিবে এবং অস্থিরতার সৃষ্টি হবে।

গর্ভাবস্থায় ঝুঁকি:- অতিরিক্ত চা পান করা গর্ভবতী মা ও তার শিশুর জন্য মারাত্মক ক্ষতিকর। শরীরে ক্যাফেইনের অতিরিক্ত উপস্থিতি গর্ভাবস্থায় চরম ঝুঁকিপূর্ণ। তাই গর্ভবতী অবস্থায় মায়েদের জন্য ক্যাফেইনমুক্ত বা ভেষজ চা খাওয়ার পরামর্শ দেওয়া হয়।

আরও পড়ুন

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

টাটকা আপডেট

সবচেয়ে জনপ্রিয় সংবাদ