ল্যাপটপ চার্জে দিয়ে চালালে কি ল্যাপটপের ক্ষতি হয়, নাকি চার্জে দিয়ে চালানোই ভালো!

ল্যাপটপ ও ইন্টারনেট এখন মানুষের খুব কাছের সঙ্গী হয়ে উঠেছে। আমাদের ছোটো বড়ো সব কাজের ওপর নির্ভরশীল হয়ে পড়ছে ল্যাপটপ। কিন্তু আমরা যারা ল্যাপটপ ব্যবহার করি তারা ল্যাপটপের চার্জ কতক্ষণ থাকবে তা নিয়ে আমরা চিন্তায় থাকি। চার্জ অতি দ্রুত শেষ হওয়ার ফলে আমরা চার্জারটি ল্যাপটপের সঙ্গে লাগিয়েই ব্যবহার করি। বিশেষজ্ঞদের মতে চার্জার ল্যাপটপে লাগিয়ে ব্যবহার করলে ব্যাটারির আয়ু কমতে থাকে। তাই আমরা সব সময় ল্যাপটপে চার্জার লাগিয়ে ব্যবহার করবোনা।

আপনাকে একটি কথা মাথায় রখাতে হবে, লিথিয়াম আয়ন এবং লিথিয়াম পলিমার — যে টেকনোলজিরই ব্যাটারি আপনার ডিভাইসটিতে থাকুক না কেন, অবশ্যই সেটা অনেক ভালো একটি টেকনোলজি এবং তাতে ব্যাটারি ওভারচার্জিং হওয়ার কোন প্রশ্নই আসে না। ডিভাইস যখন চার্জে লাগানো থাকে এবং ব্যাটারি ফুল চার্জ হয়ে যায়, স্বয়ংক্রিয়ভাবে তখন ব্যাটারি চার্জ গ্রহন করা বন্ধ করে দেয়। ল্যাপটপ ফুল চার্জ হয়ে যাওয়ার পরে, একটু করে চার্জ কমবে এবং তারপর একটু চার্জ হবে, এই নিয়ম বজায় রেখেই চলতে থাকবে। তবে কিছু কিছু ল্যাপটপ ফুল চার্জ হয়ে যাওয়ার পরে যদি চার্জে লাগানো থাকে তখন তাহলে ব্যাটারি থেকে পাওয়ার না নিয়ে চার্জার থেকে পাওয়ার নিতে থাকবে। আর কিছু কিছু ল্যাপটপ অন-লাইন ইউপিএস এর মতো করে কাজ করে।

আপনাকে এটা মানতে হবে যে, আপনি যতো দামী ডিভাইসই ব্যবহার করুণ না কেন, ফোন বা ল্যাপটপ যেকোনো ডিভাইস হোক না কেন ব্যাটারি সময়ের সাথে সাথে পারফর্মেন্স ডাউন হতে থাকে সেটা তো স্বাভাবিক। আর এই পারফর্মেন্স কোনো ভাবেই ফিরিয়ে আনা সম্ভব নয়। হয়তো কিছু নিয়ম অনুসরণ করলে ব্যাটারির পারফর্মেন্স ধরে রাখা সম্ভব। তবে আসতে আসতে পারফর্মেন্স কমতে থাকে। ল্যাপটপের ব্যাটারির পারফর্মেন্স ধীরে ধীরে কমতে থাকে, যদি ল্যাপটপ ৬ মাস বা ১ বছরের বেশি হয়ে থাকে তাহলে দেখবেন, ব্যাটারি ব্যাকআপ আর আগের মতো নেই। যদিও আলাদা ল্যাপটপ, আলাদা ব্র্যান্ড অনুসারে ধীরে বা দ্রুত পারফর্মেন্স খারাপ হয়, কিন্তু মোটামুটি ৫০০ রিচার্জ সাইকেল এই ব্যাটারি থেকে কাম্য হতে পারে।

রিচার্জ সাইকেল বলতে ব্যাটারি ১০০% থেকে ০% এ নেমে আসা এবং আবার চার্জে লাগিয়ে দেওয়া। এভাবে ৫০০ বার পর্যন্ত ব্যাটারি ভালো থাকতে পারে। এখন নিশ্চয় চিন্তা করছেন, “তাহলে তো ব্যাটারি ডিসচার্জ করতেই দেবো না” — না, এরকম করাও যাবে না। ব্যাটারির ফুল চার্জ করে রাখাটাও একদিক থেকে ক্ষতিকর।

আমার মতে সবথেকে ভালো ল্যাপটপ ব্যাটারি চার্জিং লেভেল হচ্ছে ৮০% বা তার আশেপাশে রেখে দেওয়া, এবং অবশ্যই ল্যাপটপ গরম হচ্ছে কিনা সেটা খেয়াল রাখা। ল্যাপটপ ব্যবহারকারী দের আমি পরামর্শ দেবো , বাজার থেকে একটি কুলার কিনে নিতে। আজকের ল্যাপটপ গুলো দিনে দিনে আরোবেশি স্লিম হয়ে যাচ্ছে, এতে কুলিং সিস্টেম অনেকটা চ্যালেঞ্জের মুখে পড়ে যাচ্ছে। ৫০০ টাকা থেকে শুরু করে ল্যাপটপ কুলার বাজারে কিনতে পাওয়া যায়, ল্যাপটপ ঠাণ্ডা রেখে আপনি একে তো অনেক ভালো কম্পিউটিং পারফর্মেন্স পেতে পাড়বেন এবং দ্বিতীয়ত ব্যাটারি লাইফ বৃদ্ধিও করতে পারবেন।

Related Articles

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Popular Now

Categories

ABOUT US

Dainikchorcha.com is a blog where we post blogs related to Web design and graphics. We offer a wide variety of high quality, unique and updated Responsive WordPress Themes and plugin to suit your needs.

Contact us: [email protected]

FOLLOW US